Home » অর্থ ও বাণিজ্য » অগ্নিকাণ্ডে ৭ দোকান পুড়ে ছাই রাঙামাটির তবলছড়ি বাজারে

অগ্নিকাণ্ডে ৭ দোকান পুড়ে ছাই রাঙামাটির তবলছড়ি বাজারে

%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%99%e0%a7%8d%e0%a6%97%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%9f%e0%a6%bfরাঙ্গামাটি প্রতিনিধি : ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ৭টি দোকান আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। রাঙামাটিতে গত বৃহষ্পতিবার মধ্যরাতে শহরের তবলছড়ি বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় কাউন্সিলর মিজানুর রহমান বাবু জানান, রাঙামাটি শহরের তবলছড়ি বাজারে মধ্যরাতে পরিচয় নামের এক হোটেল রান্না ঘরের চুলা থেকে আকস্মিকভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়। এ রাঙামাটিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ৭টি দোকান আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বৃহষ্পতিবার মধ্যরাতে শহরের তবলছড়ি বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় কাউন্সিলর মিজানুর রহমান বাবু জানান, রাঙামাটি শহরের তবলছড়ি বাজারে মধ্যরাতে পরিচয় নামের এক হোটেল রান্না ঘরের চুলা থেকে আকস্মিকভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়। এ সময় আগুন দোকানের চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে। মুহুর্তের মধ্যেই আগুন পাশের দোকানেও ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে এগিয়ে আসে । কিন্তু আগুনের ভয়াবহতা বেড়ে যাওয়ায় রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসে খবর দেওয়া হয়। পরে ফাযার সার্ভিস ঘন্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। কিন্তু এর আগেই বাজারের প্রায় ৭টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষতিগ্রস্থ দোকান গুলো হলো ১- পরিচয় হোটেল, ২- আলম বেকারী ও কুলিং কর্ণার, ৩- আমির শাহ ষ্টোর, ৪- গোপাল বেতের দোকান, ৫-ছোট্টন মিল ঘর ও পানের দোকান, ৬- অরূপ মুদি দোকান, ৭- যেয়াব এর ফার্নিচারের দোকান। প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৩০ লক্ষ টাকা দাবি করে ক্ষতিগ্রস্ত মালিকরা।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত আলম বেকারী আহম্মেদ ইমতিয়াজ রিয়াদ জানান, আগামী শনিবার বাজার বারের জন্য আনা মালামালসহ গোডাউনে থাকা সব মালামালা পুড়ে গেছে। হঠাৎ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কিছুই উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা শংকর জানান, খবর পাওয়ার সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিসের দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। ৭টি দোকান পুড়ে গেলেও পুরো বাজার রক্ষাকরা সম্ভব হয়েছে। সময় থাকতে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা সম্ভব হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় প্রায় ১৫লক্ষ টাকার মাল উদ্ধার করতে পেরেছে বলেও জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিসের দল।সময় আগুন দোকানের চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে। মুহুর্তের মধ্যেই আগুন পাশের দোকানেও ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে এগিয়ে আসে । কিন্তু আগুনের ভয়াবহতা বেড়ে যাওয়ায় রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসে খবর দেওয়া হয়। পরে ফাযার সার্ভিস ঘন্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। কিন্তু এর আগেই বাজারের প্রায় ৭টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষতিগ্রস্থ দোকান গুলো হলো ১- পরিচয় হোটেল, ২- আলম বেকারী ও কুলিং কর্ণার, ৩- আমির শাহ ষ্টোর, ৪- গোপাল বেতের দোকান, ৫-ছোট্টন মিল ঘর ও পানের দোকান, ৬- অরূপ মুদি দোকান, ৭- যেয়াব এর ফার্নিচারের দোকান। প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৩০ লক্ষ টাকা দাবি করে ক্ষতিগ্রস্ত মালিকরা।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত আলম বেকারী আহম্মেদ ইমতিয়াজ রিয়াদ জানান, আগামী শনিবার বাজার বারের জন্য আনা মালামালসহ গোডাউনে থাকা সব মালামালা পুড়ে গেছে। হঠাৎ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কিছুই উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা শংকর জানান, খবর পাওয়ার সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিসের দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। ৭টি দোকান পুড়ে গেলেও পুরো বাজার রক্ষাকরা সম্ভব হয়েছে। সময় থাকতে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা সম্ভব হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় প্রায় ১৫লক্ষ টাকার মাল উদ্ধার করতে পেরেছে বলেও জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিসের দল।

 

About admin1

Leave a Reply