মৎস্যচাষ প্রকল্পে দুর্নীতি নিয়ে অসন্তোষ পার্বত্য প্রতিমন্ত্রীর

ddcc-meeting-pic-29-12-16-01-copyপার্বত্য ডেস্ক : পার্বত্য চট্টগ্রামে বাস্তবায়নাধীন মৎস্যচাষ প্রকল্পে অনিয়ম-দুর্নীতির প্রশ্ন তুলেছেন খোদ পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। তিনি প্রকল্পটির কার্যক্রম নিয়ে ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, প্রকল্পের সঠিক বাস্তবায়ন নিয়ে মৎস্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কর্মকাণ্ডে যথেষ্ট স্বচ্ছতার অভাব দেখা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় এ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং। এ সময় প্রতিমন্ত্রীর তোপের মুখে পড়েন উপস্থিত মৎস্য কর্মকর্তারা। সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে মৎস্যচাষ উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. আবদুর রহমান ও জেলা মৎস্য কর্মকর্তা সৈয়দ মো. আলমগীর উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, পার্বত্য জেলাগুলোয় মৎস্যচাষ কার্যক্রম ও উৎপাদন বাড়িয়ে স্থানীয় জনগণের আয় ও পুষ্টির জোগান দেয়ার লক্ষ্যে ৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে সরকার। বর্তমানে প্রকল্পের তৃতীয় পর্যায় কার্যক্রম চলছে। ২০১৭ সালে প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হবে। তিন পার্বত্য জেলার মোট ২৫ উপজেলায় এ প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ চলছে।

প্রকল্পে পার্বত্য এলাকায় পাহাড়ি ছড়ায় ক্রীকবাধ নির্মাণের মাধ্যমে জলাশয় সৃষ্টি ও উন্নয়ন করে সেখানে মাছচাষ, হাঁস-মুরগি পালন, শাক-সবজি চাষ, কৃষি, সেচ সুবিধা ও গৃহস্থালী কাজে ব্যবহার, মাছের পোনা উৎপাদন ও লালন-পালনের জন্য মৎস্য হ্যাচারি ও নার্সারি স্থাপন এবং স্থানীয় মৎস্য চাষিদের চাষ, প্রযুক্তি ব্যবহার ও সম্প্রসারণের ওপর প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বাস্তবায়ন চলছে বলে জানায়, মৎস্য কর্মকর্তারা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মাসিক উন্নয়ন সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমার সভাপতিত্বে সভায় পৌরসভা মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, জেলা পরিষদের সদস্য, কর্মকর্তা, উপজেলা চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং জেলা পরিষদের নিয়ন্ত্রণাধীন সরকারি বিভাগ ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় উপস্থিত মৎস্য কর্মকর্তাদের উত্থাপিত পার্বত্য এলাকায় বাস্তবায়নাধীন মৎস্যচাষ প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পর্কে বিভিন্ন মতামত ব্যক্ত করেন। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে যতদূর সুফল ও সফলতা আসার কথা- তা প্রকৃতপক্ষে পরিলক্ষিত হচ্ছে না উল্লেখ করে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, এত টাকা ব্যয় করে সরকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করছে, অথচ কাঙ্খিত ফলাফল নেই। তাহলে টাকাগুলো যাচ্ছে কোথায়?

প্রতিমন্ত্রী বলেন, একটা সময় আসবে, তখন প্রশ্ন উঠবে সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় করেছে কিন্তু ফলাফল শূন্য। বলা হবে এসব টাকা গেল কোথায় ? তিনি পার্বত্য এলাকায় বাস্তবায়নাধীন মৎস্য চাষ প্রকল্পে দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের কর্মকাণ্ড নিয়ে নানা অনিয়ম-দুর্নীতির প্রশ্ন তোলেন। দায়িত্বে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদেরকে এক মাসের মধ্যে প্রকল্পের বিস্তারিত প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর। সভায় এছাড়াও জেলায় বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প ও পরিকল্পনা বিষয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা হয়েছে। পরে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে মুক্তিযোদ্ধাদের শীতবস্ত্র এবং জেলার ২৫টি শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সরঞ্জামাদি বিতরণ করেন বীর বাহাদুর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *