রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে সন্ত্রাসীদের দেওয়া আগুনে পুড়েছে মাইসছড়ির ব্যবসায়ীদের সপ্ন

খাগড়াছড়ি প্র্রতিনিধি: সন্ত্রাসীদের দেওয়া আগুনে শুধুমাত্র মালামালসহ ট্রাক পুড়ে ছাই হয়নি সেদিন, পুড়েছে মাইসছড়ি বাজারের ১০/১২ জন ব্যবসায়ীর স্বপ্নও। কারো সারা জীবনের উপার্জিত পুঁজি হারিয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন। কেউ আবার  জীবনধারণের একমাত্র অবলম্বন ব্যবসা বন্ধ হবার আশংকায় আছেন। আর কী দাঁড় করাতে পারবেন জীবিকার একমাত্র অবলম্বন ব্যবসাটি । কীভাবে জুটবে পরিবারের সদস্যদের মুখে আহাড়। এসব হাজারো প্রশ্ন ভীড় করছে এ বাজারের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের মাথায়।

তেমনি একজন ক্ষতিগ্রস্ত মাইসছড়ি বাজারের পাশে বসবাসকারী মো. সফর আলী। সারাজীবন অন্যের জমিতে বর্গা চাষ করে সংসার চালিয়ে আসছেন তিনি। বয়স বেড়েছে এখন আর এতো পরিশ্রম শরীরে সহ্য হচ্ছে না। তাই কয়েক দিন আগে স্থির করেন ব্যবসা করবেন। মাইসছড়ি বাজারে একটি দোকান ঘর ভাড়া নেন ব্যবসা করার উদ্দেশ্যে। সারাজীবনের সঞ্চয় এবং নিকটাত্মীয়দের কাছ থেকে ধারদেনা করে  চট্টগ্রাম থেকে প্রথম দোকানের জন্য মালামাল ক্রয় করেন। অন্যসব দোকানীদের সাথে তিনিও মালামাল  নিয়ে আসতে সেদিন ট্রাকে তুলে দেন। সন্ত্রাসীদের দেওয়া আগুনে সব মালামালের সাথে পুড়ে যায় সফর আলীর মালামালও। সেই সাথে পুড়ে তার সপ্ন, আজ তার পথে বসার জোগাড়।
01
বৃহস্পতিবার সফর আলীর বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, পুড়ে নষ্ট হয়ে যাওয়া ব্যবসার উদ্দেশ্য কেনা বিভিন্ন মালামাল। এসময় তিনি জানান, নগদ দুই লাখ সত্তর হাজার টাকার কেনা মালামাল পুড়েছে। এখন একখণ্ড ভিটেমাটি ছাড়া আর কিছু নেই। সারাজীবনে তিলতিল করে সঞ্চিত অর্থ পুড়িয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। ধারকর্জ করা টাকা কী করে পরিশোধ করবেন? সেই সাথে পরিবারপরিজনের ভরণপোষণ নিয়েও বিপাকে পড়েছেন তিনি।

আরো কয়েকজন ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীর সাথে কথা হয়। তারমধ্যে শুটকি ও মুদি ব্যবসায়ী তমল বড়ুয়া বলেন, তিনি ব্যাংক লোনের পাশাপাশি মহাজন থেকে বাকিবকেয়া নিয়ে ব্যবসা করেন। তার প্রায় এক লাখ টাকার মালামাল সেদিন পুড়েছে।
IMG_20170127_002557
উল্লেখ্য, গত ২৩ জানুয়ারি সোমবার ভোর ৫ টায় রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচরের কাঠালতলীতে উপজাতীয় সন্ত্রাসীরা মালভর্তি ২টি ট্রাক আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়।

এ ঘটনায় মাইসছড়ি বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. আকবর হোসেন জানান, বাজারের ১০/১২ জন ব্যবসায়ীর প্রায় বিশ লাখ টাকার মালামাল সন্ত্রাসীরা সেদিন পুড়িয়ে দিয়েছে। তিনি সন্ত্রাসীদের বিচারের দাবী করে, নিরাপদে ব্যবসা করার পরেবেশ সৃষ্টি করতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *