ষড়যন্ত্র চলছে “গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব” নিয়ে

সাংবাদিক ফোরাম ছবিখাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব নিয়ে চলছে ষড়যন্ত্র। গুইমারা সাংবাদিক ফোরাম নামের সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা গঠিত গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব নিয়ে নানা ভাবে ষড়যন্ত্রের ক্ষোভ প্রকাশ করেছে পেশাজীবি সংবাদকর্মীরাও।

গুইমারা সাংবাদিক ফোরামটি উদ্বোধন হয় ১ জুলাই ২০১০ সালে, প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিতে উদ্বোধনী অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন, এজাজুর রহমান ব্রিগেট কমান্ডার ২৪ আর্টিলারী গুইমারা রিজিয়ন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বাবু কংজরী চৌধুরী, হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। সাংবাদিক ফোরামের সাইন বোর্ডে দেওয়া তথ্য মতে গুইমারা সাংবাদিক ফোরাম প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০৭ সালে।

GSFআবার নতুন করে ০৮ মার্চ ২০১৬ গত বছরেই গুইমারা বাজারে কাশেম মার্কেটে “সাংবাদিক ফোরাম” উদ্বোধন করলেও ১ বছর যেতে না যেতেই ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ইন্দনে সাংবাদিক ফোরামকে “উপজেলা প্রেস ক্লাব গুইমারা” বানানোর পায়তারা চলছে। দাপ্তরিক ই-সেবাই সেরা হওয়ায় বিএম মশিউর রহমান সংবর্ধনার নামে গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাবের বিরুদ্ধে ষড়যন্তের অভিযোগ এনে নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দরা। গুইমারা সাংবাদিক ফোরাম নামের সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা গঠিত গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব নিয়ে নানা ভাবে ষড়যন্ত্রের ক্ষোভ প্রকাশ করেছে পেশাজীবি সংবাদকর্মীরাও।

গত ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে লেঃ কর্ণেল আতিকুল হক চৌধুরীকে গুইমারা সাংবাদিক ফোরাম ও খাগড়াছড়ি দক্ষিনাঞ্চল প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা যানানো হয় গুইমারা সাংবাদিক ফোরাম এর পক্ষথেকে সাইফুর রহমান সজিব একটি পোস্ট করেন। আবার ৬ মাসের মধ্যে বি.এম. মশিউর রহমানকে সংবর্ধনা দিচ্ছে “উপজেলা প্রেস ক্লাব গুইমারা” নাম ব্যবহার করে। এটি একটি পরিকল্পিত চক্রান্ত “গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব” নামে একটি বৈধ প্রেস ক্লাব থাকা সত্যেও আবার নতুন এক প্রেস ক্লাব হতে পারেনা বর্তমান “গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব” এর সভাপতি ও সকল সদস্যবৃন্দ তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। তিনি কয়টি সংগঠনের সভাপতি হতে চায় তা নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন।

অপরদিকে, ২০০৩ সালে প্রথম গুইমারা প্রেস ক্লাব কমিটি গঠিত হয়, যখন গুইমারা উপজেলা হয়নি। ঐ সময় সভাপতি ছিলেন মো: নুরুল আলম, সাধারন সম্পাদক মো: ফারুক, উক্ত কমিটিতে গুইমারা মাটিরাঙ্গা ও মানিকছড়ির সাংবাদিকদের নিয়ে ৯ সদস্য কমিটি গঠন করা হয়। ২০০৩ সালের কমিটির সময় শেষ হওয়ার পরে আবার ২০০৬ সালে নতুন কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত ২০০৬ সালের কমিটিতে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয় নুরুল আলম, সাধারন সম্পাদক আব্দুল আলী।

২০১৪ সালে আবার নতুন করে কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত কমিটিতে নুরুল আলমকে উপদেষ্টা করে আব্দুল আলী সভাপতি করে সিলেকশন করা হয়। গত ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ সালে উপস্থিত সাংবাদিকদের মতামতের ভিত্তিতে পূর্বের কমিটির সভাপতি আব্দুল আলী’র ব্যাক্তিগত সমস্যার কারণে স্বীয় অব্যাহতি ও সহ-সভাপতি দুলাল আহম্মদ সাংগঠনের নিয়ম বহিভূত কাজ করায় তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়। এছাড়াও সাধারণ সম্পাদক মিল্টন চাকমা সাংগঠনের কার্যক্রমে অবহেলা, একাদিক মিটিং অনুপস্থিত ও সংগঠন পরিচালনায় অসহযোহিতা করায় পূর্বের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়। বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক, আঞ্চলিক পত্রিকা ও অনলাইন মিডিয়ায় কর্মরত সংবাদ কর্মীদের লিখিত আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাবের নতুন কমিটি গঠন করা হয়।

পরে সকল সদস্যদের সম্মতিতে সাংবাদিক নুরুল আলমকে সভাপতি, মো: জুবায়ের রহমানকে সাধারণ সম্পাদক, ফোরকানুল হক সাকিবকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গুইমারা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি/সাধারন সম্পাদক (সাইফুর, সাহ আলম) গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাবের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভান্তী সৃৃষ্টি করছে। এবং মান হানি কর কর্র্মকান্ড চালাচ্ছে ২৬ জানুয়ারী ২০১৭ইং এ গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয় সাংবাদিক ফোরামের অফিসে। উক্ত সাংবাদিক ফোরাম প্রেস ক্লাব নাম ব্যবহার করার ষড়যন্ত্র করছে। যার করাণে প্রকৃত “গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাবে”র সুনাম ব্যাপক ভাবে নষ্ট হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *