ইসি গঠনে সার্চ কমিটিকে নাম জমা দিল আ’লীগ-বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার: নির্বাচন কমিশন-ইসি গঠনে সার্চ কমিটির কাছে নাম জমা দিয়েছে দেশের শীর্ষ দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। মঙ্গলবার দুপুরে দুটি দলের প্রতিনিধিরা মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও বিধি) মো. আব্দুল ওয়াদুদের কক্ষে গিয়ে নাম জমা দিয়ে আসেন। ১২টা ৪০ মিনিটে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলটির দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ ইসি গঠনে নাম দিতে যান। সেখানে নাম জমা দিয়ে ১২টা ৫৭ মিনিটে তিনি বেরিয়ে যান।

এর প্রায় দশ মিনিট আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিএনপির পক্ষ থেকে দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এবিএম আবদুস সাত্তার নাম জমা দিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে আসেন। অতিরিক্ত সচিবের কাছে ৫ জনের নামের তালিকা জমা দিয়ে তারা তিন মিনিটের মধ্যে কক্ষ থেকে বেরিয়ে যান। তবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রস্তাবিত নামের তালিকায় কারা রয়েছেন সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি। এছাড়া রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপ করা অন্যান্য নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোও পাঁচটি করে নাম জমা দিয়েছে দিয়েছে।

তালিকা জমা দেয়ার পর আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক সাংবাদিকদের বলেন, ‘পাঁচটি নাম পাঠানো নিয়ে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ ও কার্যকরী কমিটির এক যৌথ সভা হয়। সেখানে সবার কাছে নাম আহ্বান করা হয়, সবাই গোপনে লিখিতভাবে নাম দেয়। অধিকতর সংখ্যায় যে নামগুলো এসেছে তার মধ্যে পাঁচটি নাম গ্রহণ করা হয়।’

কি বিবেচনায় পাঁচজনের নাম চূড়ান্ত করা হল- এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসীদের অগ্রাধিকার দিয়ে, যোগ্য, স্বচ্ছ ব্যক্তিদের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে।’

অন্যদিকে রুহুল কবির রিজভী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপনাদের নিশ্চিত করে বলতে পারি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ইতোপূর্বে নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী করতে ১৩ দফা প্রস্তাব দিয়েছেন তারই প্রতিফলন আছে নামগুলোর মধ্যে। এছাড়া আর আমি কিছুই জানি না।’

সার্চ কমিটির প্রতি বিএনপির আস্থা আছে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সার্চ কমিটি যেভাবে গঠিত হয়েছে তাতে আমরা দলের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছি। এরপরও আমরা গণতন্ত্রের স্বার্থে দেশের মানুষের নাগরিক স্বাধীনতার স্বার্থে, দেশের শান্তি ও স্থিতিশীলতার স্বার্থে নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী করতে নামের তালিকা আমরা দিয়ে গেলাম।’

রাষ্ট্রপতির নির্দেশে গত ২৫ জানুয়ারি ‍ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন করে আদেশ জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সার্চ কমিটি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও চারজন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠনে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ দেবে।

নির্বাচন কমিশন গঠনে সোমবার জাতীয় পার্টি, বাংলাদেশ সাম্যবাদী দল, গণফ্রন্ট, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নাম জমা দেয়। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি চিঠি দিলেও তারা কোনো নাম দেয়নি। দলটি নির্বাচন কমিশন গঠনের এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছে।

মঙ্গলবার সকালে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) প্রথম নাম জমা দেয়। এরপর ইসলামী ঐক্যজোটের সহকারী মহাসচিব মাওলানা আলতাফ হোসেন, খেলাফত মজলিশের নায়েবে আমির সৈয়দ মজিবর রহমান, ন্যাপের (মোজাফফর) মহাসচিব ইসমাইল হোসেন, জমিয়তে ওলামা ইসলাম বাংলাদেশ-এর প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবেদীন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের সহকারী দফতর সচিব বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মতিন সাউদ, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের চেয়ারম্যান হাফেজ মাওলানা ক্বারী শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুর এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ- ইনু) সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান শওকত, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, তরিকত ফেডারেশনের মহাসচিব এমএ আউয়াল, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূইয়া মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে নাম জমা দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *