ব্রেকিং নিউজ
Home » সম্পাদকীয় » আজ ড. রেজোয়ান সিদ্দিকীর ৬৫তম জন্মদিন

আজ ড. রেজোয়ান সিদ্দিকীর ৬৫তম জন্মদিন

সাংবাদিক নুরুল আলম

গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি নুরুল আলমসহ সকল সদস্যদের পক্ষ থেকে ড. রেজোয়ান সিদ্দিকীর ৬৫তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জাননো হয়।

আজ ১০ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার সাহিত্যিক, সাংবাদিক, কলামিস্ট ড. রেজোয়ান সিদ্দিকীর ৬৫তম জন্মদিন। তিনি বর্তমানে দিনকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ১৯৫৩ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি টাঙ্গাইল জেলার এলাসিন গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা আতিকুল হোসেন সিদ্দিকী। মাতা হাওয়া সিদ্দিকী।

সাংবাদিকতা পেশায় ঢুকেছেন ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারিতে দৈনিক বাংলায়। প্রুফ রিডার হিসেবে শুরু করেছিলেন। সেখানে শেষে ছিলেন সিনিয়র সহকারী সম্পাদক। একই সঙ্গে ছিলেন ফিচার এডিটর, সিনে সম্পাদক এবং সাহিত্য সম্পাদক। খবরের কাগজে সাংবাদিকতার এমন কোনো পদ নেই, যে পদে কাজ করেননি তিনি। এখন দৈনিক দিনকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক। মাঝখানে প্রেষণে ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা লেখক। বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন চার বছর। সফল হওয়াই তার হবি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলেন ১৯৭৩ সালে। ১৯৭২ সাল থেকেই ছোট গল্পকার ও কলাম লেখক হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন রেজোয়ান সিদ্দিকী। লেখাপড়া করেন সাহিত্যে। কিন্তু

ড. রেজোয়ান সিদ্দিকী ২

ফাইল ছবি

এইচএসসি পর্যন্ত তিনি ছিলেন বিজ্ঞানের ছাত্র। চেয়েছিলেন বড় লেখক হবেন। তার গবেষণা, প্রবন্ধ, কলাম, উপন্যাস, নাটক, ফিকশন কোনটা যে টিকবে তিনি ধারণাও করেন না। তা সত্বেও এই সময়ের সবচাইতে শক্তিশালী কলম-সৈনিক ড. রেজোয়ান সিদ্দিক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যায়ল থেকেই তিনি ‘পূর্ব বাংলার সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন : ১৯৪৭-১৯৭১’ শীষক অভিসন্ধর্ভ রচনা করে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন ১৯৯৫ সালে। হল্যান্ডের  আইএসএস (ইনস্টিটিউট অব সোস্যাল স্টাডিজ) থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও উন্নয়ন বিষয়ে তিনি অর্জন করেছেন স্নতকোত্তর ডিপ্লোমা।

কী লেখেননি রেজোয়ান সিদ্দিকী! উপন্যাস, গল্প, নাটক, বিজ্ঞান, প্রকৃতি-পরিবেশ, ফিকশন, অনুবাদ, সংকলন-সব কিছু মিলে অর্ধশতাধিক বই। এখনও অবিরাম লিখে যাচ্ছেন তিনি। জীবন-জীবিকার লড়াইও অব্যাহত আছে। জীবনের এই যাত্রা পথে রেজোয়ান সিদ্দিকীর প্রধান অবলম্বন সততা, আন্তরিকতা ও কর্তব্যনিষ্ঠা। তার জীবনে এসব বিষয় প্রশ্নাতীত। নত হতে শেখেননি তিনি।

গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতিসহ সকল সদস্য ও খাগড়াছড়ি জেলা দিনকালের সকল সাংবাদিক বৃন্দ তার ৬৫তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান দীর্ঘয়ূ কামনা করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: