খাগড়াছড়িতে ফের ব্লাক জুয়েলের আক্রমনে আহত চার

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার শালবাগান এলাকার ত্রাস হয়ে উঠছে ব্লাক জুয়েল। নেশায় মাতাল হয়ে করছে নানা অপরাধ। ছিনতাই, চাঁদাবাজি সহ নানা অপকর্ম করে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। নেশাকরার জন্য চাঁদা না পেয়ে কুপিয়ে জখম করার ঘটনাও ক্রমাগত বাড়ছে। আর এতোসব অপরাধ করার পরও প্রশাসন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় এলাকায় বসবাসকারী নাগরিকরা ক্ষুব্ধ। তবে পুলিশ বলছে এ সন্ত্রাসীকে ধরতে চেষ্টা অব্যাহত আছে।

বুধবার বিকেল ৪টার দিকে আবারও ব্লাক জুয়েলের আক্রমনে আহত হয়েছে চার জন পথচারী। আহতদের মধ্যে তিনজনকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন, তেতুল তলার বাসিন্দা উথাইপ্রু মারমা (৪০), ধর্মঘর এলাকার রিপ্রুচাই মারমা (৩৫), মাটিরাঙ্গা উপজেলার গোমতী এলাকার বাসিন্দা নুর আলম (২৫) ও শালবাগানের বাসিন্দা ফারুক। এরা সবাই সাধারণ নাগরিক।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ট্রাক্টর ড্রাইভার জাকির জানান, তিনি ভাড়া নিয়ে শালবাগানের রসুলপুর পৌঁছালে রাস্তার পাশে বসে নেশাকরতে থাকা ব্লাক জুয়েল, আকতার সহ তিনজন থামতে সংকেত দেয়। ট্রাক্টর থামালে ব্লাক জুয়েল গলায় ধারালো ক্রিস চেপে ধরে টাকা দাবি করে। ১০০ টাকা দেয়ার পরও সহকারী নুর আলমের ঘারে এবং পায়ে কোপ দেয়।

হামলায় আহত রিপ্রুচাই মারমা জানান, ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেলে করে ফিরছিলেন। রসুলপুর আসতেই তিনজনে এলোপাথারি কুপিয়ে আহত করে।

এর আগে গত ৩০ শে জানুয়ারি ভিন্ন ভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়ে আহত করেন  শালবাগান এলাকার বাসিন্দা মো. বাকের মিয়া , মো. আলমগীর ও মো. মশিউর রহমান নামের তিনজনকে।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি ) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ব্লাক জুয়েলকে আটক করতে কয়েকটি টিম চেষ্টা চালাচ্ছে। খুব শীঘ্রই তাকে আটক করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *