সরকারী রাস্তায় প্রভাবশালীদের পুকুরে বাঁধ

Zia-nagar-Pic-660x330নিজেস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলায় পানছড়ি-জিয়ানগর ইট সলিং রাস্তার উপর পুকুরের বাঁধ নির্মাণ ও পানি চলাচলের নাশী বন্ধ করে রেখেছে এলাকার এক প্রভাবশালী।

সরকারী এই সড়কের উপর বাঁধ নির্মাণ ও নাশী বন্ধে প্রশাসন কর্তৃক কোন বাঁধা না আসায় এলাকাবাসী হতাশ। যার ফলে স্যাঁতশ্যাঁতে এই সড়কটি যে কোন মুহুর্তে বিলীন হওয়ার সম্ভাবনায় চরম আতংঙ্ক বিরাজ করছে এলাকাবাসী ও চলাচলকারীদের মধ্যে।

এবারের আগাম বৃষ্টির পানি জমে বর্তমানে রাস্তাটি দিয়ে মানবেতর চলাচল করছে পথচারীরা। অথচ এই সড়ক দিয়ে ৫নং উল্টাছড়ি ইউপির জিয়ানগর, আলী নগর, মুসলিমনগর, ওমরপুর ও রসুলপুরসহ গ্রামের লোকজনের চলাচলের একমাত্র মাধ্যম। গত বছরের প্রবল বর্ষণে বাঁধ ভেঙ্গে সরকারী সড়কের ইট ও মাটিসহ প্রায় ৩০ ফুটের অধিক রাস্তা উপড়ে জনচলাচলে কয়েকদিন লেগেছিল চরম ভোগান্তি।

সরেজমিনে দেখা যায়, জিয়ানগর পুলিশ পোষ্টের সামনে সরকারী রাস্তার উপরেই পুকুরের বাঁধ। এই বাঁধের মালিক জিয়ানগর গ্রামের মৃত আবদুছ ছামাদের ছেলে হোসেন আলী। গত ৪/৫ বছর যাবৎ বাঁধের পানিতে সারাবছর রাস্তাটি শ্যাঁতশ্যাঁতে অবস্থা বিরাজ করে আসছে বলে জানায় পথচারীরা। তাছাড়া এই জায়গায় এসে বিদ্যালয় পড়–য়া শিক্ষার্থী, মোটর সাইকেলবাহী ও পাঁয়ে হেঁটে চলাচলকারীরাও কর্দমাক্ত পানিতে কাপড়-চোপড় নষ্ট করে বলে জানা যায়।

সরকারী রাস্তায় নির্মিত কালভাটেঁ সে নিজের মনগড়ামত সময় বাঁধ দিয়ে পানি ছাড়ে ও বন্ধ করে এবং শুকনো মৌসুমে এই পানি ধান্য জমিন মালিকদের মাঝে বিক্রি করে বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেকে জানায়। এই প্রভাবশালীকে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায়না। উচ্চ পর্যায়ের কোন প্রতিবাদ আসলেও তার পুকরের ৮/১০ কেজি: ওজনের মাছ দিয়ে ম্যানেজ করে নেয় বলেও বিশ্বস্থ সূত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে পানছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হেসেন ছিদ্দিক জানায়, সরকারী রাস্তা দখল করে পুকুরের বাঁধ নির্মাণ ও নাশী বন্ধের ব্যাপারে খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে। রাস্তা দিয়ে চলাচলকারীদের দাবী সরকারী কালভার্ট বন্ধ করা সম্পুর্ন বে-আইনি। এই কালভার্ট বন্ধের ফলেই পুকুরের পানি উপচে সারা বছর রাস্তাটি থাকে কর্দমাক্ত। কালভার্টটি উম্মুক্ত ও পুকুরের বাঁধ সহসাই অপসারন না করলে জনচলাচলের একমাত্র সড়কটি যে কোন মুহুর্তে আবারও ধ্বসে পড়তে পারে বলে মনে করছেন ভুক্তভোগীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *