পিতা-পুত্রকে গুলি করে হত্যা ও গণধর্ষনের ৬৪ নেতাকর্মীকে আসামী করে মামলা

index

নিজস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ির সদর উপজেলায় ব্যবসায়ী চিরঞ্জয় ত্রিপুরা ও তার ছেলে কর্ণ জ্যোতি ত্রিপুরাকে গুলি ও কুপিয়ে হত্যা এবং নারীদের গণধর্ষণের অভিযোগে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য খোবনেশ্বর ত্রিপুরাসহ অন্তত ৬৪ জনকে আসামী করে খাগড়াছড়ি সদর থানায় মামলা হয়েছে। শুত্রবার রাতে নিহত চিরঞ্জয় ত্রিপুরার ছেলে নিহার ত্রিপুরা বাদী হয়ে মামলাটি( মামলা নং ৪, তারিখ,১২.০৫.২০১৭) দায়ের করেন।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারেক আব্দুল হান্নান মামলার দায়ের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলায় সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য খোবনেশ্বর ত্রিপুরা,জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের নেতা মংশেপ্রু চৌধুরী অপু এবং ইউপি সদস্য কালিবন্ধু ত্রিপুরাসহ ৩৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ৩০ জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামী করে মামলাটি দায়ের করা হয়। পুলিশ আসামীদের গ্রেফতারের সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে জেলা সদরের থলিপাড়া এলাকায় কালিবন্ধু ত্রিপুরা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলায় ব্যবসায়ী চিরঞ্জয় ত্রিপুরা ও তার ছেলে কর্ণ জ্যোতি ত্রিপুরা নিহত এবং চিরঞ্জয় ত্রিপুরার স্ত্রী ভবেলক্ষী ত্রিপুরা ও ছেলে কর্ণ জ্যোতি ত্রিপুরার স্ত্রী বিজলি ত্রিপুরা গুরতর আহত হন।

সন্ত্রাসীরা ব্যবসায়ী চিরঞ্জয় ত্রিপুরা ও তার ছেলে কর্ণ জ্যোতি ত্রিপুরা প্রথমে গুলি ও পরে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। এ সময় চিরঞ্জয় ত্রিপুরার স্ত্রী ভবেলক্ষী ত্রিপুরা ও ছেলে কর্ণ জ্যোতি ত্রিপুরার স্ত্রী নারী কার্বারী বিজলি ত্রিপুরা পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়। তারা এখন খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *