আন্তর্জাতিক পার্বত্য চট্টগ্রাম প্রশাসন ব্রেকিং নিউজ

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদকে গুলশান বশতবাড়ী থেকে উচ্ছেদ, দেখা করতে গেছেন দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া

ডেস্ক রিপোর্ট: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদকে রাজধানীর গুলশান বশতবাড়ী থেকে বিনা নোটিশে বেআইনী ভাবে উচ্ছেদ করা হয়েছে, দেখা করতে দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া।

বাড়ি নিয়ে মওদুদের যত স্মৃতি গুলশান এভিনিউর বাড়িতে ৩৬ বছর বসবাসের পর মওদুদকে উচ্ছেদ করে রাজউক। বুধবার দুপুর ১২টা থেকে তাকে উচ্ছেদে অভিযান শুরু হয়। এসময় তার দীর্ঘদিনের বাড়িটি নিয়ে আবেগে আপলুত হয়ে পড়েন তিনি। সাংবাদিকদের কাছে তিনি বাড়িটিকে ঘিরে বিভিন্ন স্মৃতিচারণ করেন।

আবেগ জড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, এই বাড়িতে চীনের প্রধানমন্ত্রী লি পেং, ফরাসী পররাষ্ট্র মন্ত্রীসহ আরও অনেকে এসেছিলেন। খুব বড় বড় দেশি বিদেশি আন্তর্জাতিক নেতৃবৃন্দ এই বাড়িতে এসেছেন। এই বাড়ির সঙ্গে আমাদের অনেক রাজনৈতিক জীবনের স্মৃতি জড়িত।

১৯৮১ সাল থেকে তিনি এ বাড়িতে ছিলেন উল্লেখ করে মওদুদ বলেন, বাড়ির মালিকের দেয়া বৈধ কাগজে একটা বৈধ লিজ ডিডের অধীনে আমি এই বাড়িতে ছিলাম। আমি সেজন্য মামলাও দায়ের করেছি, সেই মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। সেখানে রাজউক ও সরকারকে সমন করা হয়েছে। এই অবস্থায় থাকাকালে বিনা নোটিশে সরকার বিচার বিভাগের আদেশ উপেক্ষা করে একটা স্বৈরাচারী আচরণের মাধ্যমে এই কাজ করেছে। আমি এর বিচারের ভার দেশের জনগনের কাছে ছেড়ে দিলাম।

এ সময় কোথায় মালামাল রাখা হচ্ছে প্রশ্ন করা হলে আবেগা আপলুত কণ্ঠে মওদুদ আহমদ বলেন, আমার পাশের একটা ফ্ল্যাট আছে, খালি ফ্ল্যাট, মালামাল ওরা সেখানে নিয়ে গেছে। সবগুলো মালামাল লন্ডভন্ড করে সেখানে নিয়ে ট্রাকের ওপরে রেখে দিয়েছে। উপরে উঠানোর লোক নেই। আমি নিজে দেখলাম, অনেকগুলো ভেঙে গেছে, অনেক পুরনো স্মৃতি, আমাদের ৫০/৬০ বছরের অনেক স্মৃতি, আমার দুই ছেলের (প্রয়াত) অনেক স্মৃতি জড়িত, তা ভেঙে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *