খাগড়াছড়িতে ২১ আগস্ট হামলার ঘটনায় স্মরণসভা ও মিলাদ মাহফিল

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি:: প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২১ আগস্ট গ্রেনেট হামলায় ভয়াল বিভীষিকাময় স্মৃতি আর নিহত আইভি রহমানসহ ও আহতদের স্মরণসভা ও মিলাদ মাহফিল করেছে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: জাহেদুল আলম সমর্থিতরা। সোমবার বিকেল ৫টায় নারকেল বাগানস্থ জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত স্মরণসভা ও মিলাদ মাহফিলে খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আমির হোসেন এর সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন,খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ সমির দত্ত।

এসময় বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক এস এম সফি, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল আলম দিদার,শ্রম বিষয়ক সম্পাদক কামাল পাঠোয়ারী,খাগড়াছড়ি জেলা শ্রমিকলীগ আহবায়ক নুরনবী, খাগড়াছড়ি জেলা কৃষকলীগের আহবায়ক আবুল কাশেম, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ফারুক আহম্মদ, ইমাম হোসেন মানিক,সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সি:সহ-সভাপতি মনির আহম্মদ মনির প্রমূখ।

এতে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাঈনুল ইসলাম,নাজমুল হাসান অপু,নুরুল আলম রনি, প্রজ্ঞাবির চাকমা,সাংগঠনিক সম্পাদক হৃদয় মারমা,দপ্তর সম্পাদক সাহাব উদ্দিন পলাশ,পাঠাগার সম্পাদক-কোরবান আলী, সমাজ সেবা সম্পাদক মনির হোসেন,খাগড়াছড়ি জেলা মৎসলীগের যুগ্ম আহবায়ক মানিক পাঠোয়ারী প্রমূখ।

বক্তরা, এ সময় ২১ আগস্টের হামলার কথা তুলে ধরে বলেন, সেদিন হামলাকারীদের মুল লক্ষ ছিল জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করে আওয়ামীলীগকে অভিভাবকহীন করা। ষড়যন্ত্রকারীদের সে উদ্দেশ্য আল্লাহর রহমতে সফল হয়নি। এ সময় নেতৃবৃন্দরা হামলাকারীদের ফাঁসী কার্যকরের মাধ্যমে বিচার দাবী করেন। এর আগের দলীয় কার্যালয়ে ২১ আগস্টের ঘটনায় নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া মাহফিলে আহত ও নিহতদের জন্য দোয়া কামনা করেন।

প্রসঙ্গত: ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে অনুষ্ঠিত শেখ হাসিনার সমাবেশে বর্বরোচিত এ গ্রেনেড হামলায় ঘটনা ঘটে।    বঙ্গবন্ধু এভনিউিতে আওয়ামী লীগরে সমাবেেশ নারকীয় এই গ্রেনেডে হামলার ঘটনা ঘটে। দেশের বিভিন্ন স্থানে বোমা গ্রেনেট হামলা ও সন্ত্রাসের প্রতিবাদে তৎকালীন প্রধান বিরোধী দল আওয়ামী লীগ এক সমাবেশের আয়োজন করে। বঙ্গবন্ধু অ্যাভনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ট্টাকের উপর স্থাপিত মঞ্চে দাঁড়িয়ে শেখ হাসিনা তার বক্তব্য শেষ করার পর পরই বিকেল ৫ টা ২২ মিনিটে অর্তর্কিত  চারদিক থেকে এ গ্রেনেট এসে পড়তে থাকে। এই র্ববরোচিত গ্রেনেটের হামলায় ২৪ জন নেতাকর্মী নিহত ও প্রায় ৪শ’ জন নেতাকর্মী আহত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *