পুলিশের চাকরী হয় যোগ্যতায়: খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি:: ঘুষ ছাড়া পুলিশের চাকরীর নিয়োগে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান পিপিএম-সেবা। তিনি বলেন, পুলিশের চাকরী হবে যোগ্যতায়। যারা শিক্ষাগত যোগ্যতা, মেধা ও দক্ষতা অর্জন করতে পেরেছে তাদের সকল পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হলেই নিজ যোগ্যতার ভিত্তিতে চাকরী হবে।

পুলিশের চাকরীতে কোন ঘুষের প্রয়োজন হয় না। অবৈধ লেনদেন ছাড়াই খাগড়াছড়িতে শুধুমাত্র ১শ ৩ টাকার খরচের চাকরীর নিয়োগ পাওয়া যাচ্ছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। রবিবার খাগড়াছড়ির পুলিশ লাইনে মৌখিক পরিক্ষার ফলাফল ঘোষনার সময় খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরো জানান, খাগড়াছড়িতে ৫৬জন পুলিশ সদস্য (পুলিশের কনস্টেবল) নিয়োগের বিজ্ঞাপন দেয়ার পর প্রথম অবস্থায় প্রায় ৩৯৬জন নারী-পুরুষ লাইনে দাঁড়ায়। পরে প্রাথমিক বাছাইয়ে উত্তীর্ণ হয় ২৪৫ জন। তার মধ্যে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয় ৯০ জন উর্ত্তীণ হলেও সর্বশেষ মৌখিক পরীক্ষায় ৬৫ জন উত্তীর্ণ হয়।

তার মধ্যে পুলিশ কোটায় ১ জন, আনসার কোটায় ১ জন, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ৯জন, নারী ৫ জন ও সাধারণ কোটায় ৪৯ জনসহ মোট ৫৬ জন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। এর মধ্যে ১২ জন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ফেনী সদরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: রবিউল ইসলাম ও রাঙ্গামাটি সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: জাহাঙ্গীর আলম প্রমূখ।

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার এ সময় আরো জানান, পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ নিয়ে নবাগত মহাপুলিশ পরিদর্শক স্যারের কড়া নির্দেশ ছিল। এতে পুলিশ হেডকোয়ার্টারের টিম ছিল। পাশপাশি সহকর্মীদের আন্তরিকতা প্রচেষ্টা ও স্যারের নিদের্শে এটি সম্ভব হয়েছে। সে সাথে এ নিয়োগে কোন ধরনের অনিয়ম বা আর্থিক লেনদেন না থাকায় ফলে সাধারণ ঘরের সন্তানরা ১০৩ টাকায় চাকরি পাওয়ায় সকলের মধ্যে দূর্নীতিমুক্ত দেশ গড়ার যে চেতনা তা জাগ্রত হবে বলে এ সময় মন্তব্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *