Home » ক্রাইম নিউজ » গুইমারার মেয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যুকে গুইমারার মেয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, বাড়ির মালিক একে খানধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টাধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা

গুইমারার মেয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যুকে গুইমারার মেয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, বাড়ির মালিক একে খানধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টাধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা

নুরুল আলম, খাগড়াছড়ি:: গুইমারা উপজেলার ডাক্তার টিলার মালয়েশীয়া প্রবাসী ফিরোজ খানের মেয়ে রেবেকা সুলতানা পলির(১৩) রহস্য জনক মৃত্যুকে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে বাড়ির মালিক ও তা লোক জন।
৫ অক্টোবর ২০১৯ শনিবার মেয়ের মা সাংবাদিকদের বলে, নিহত স্কুল ছাত্রীর নাম রেবেকা সুলতানা পলি কে বাড়ির মালিক কর্তৃক এ হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে ।
সে খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার ডাক্তার টিলার মালয়েশীয়া প্রবাসী ফিরোজ খান ও সকিনা খাতুন দম্পতির সন্তান। এবং চট্টগ্রামের হালিশহর আহম্মদ মিয়া সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী। জানাযায়, চট্টগ্রামের ইয়াংওয়ানে চাকুরীর সুবাদে খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার ডাক্তার টিলার বাসিন্দা প্রবাসী ফিরোজ খানের স্ত্রী সকিনা খাতুন এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে ৩৮ নং ওয়ার্ডের কুড়ির পাড়ের একেখানের ৫তলা ভবনের নীচতলায় ভাড়া থাকতেন তিনি।
নিহত ছাত্রী পলির মা সকিনা খাতুনের দাবী তিনি ইয়ংওয়ানে চাকরী করার কারণে মেয়েকে একায় থাকতে হতো বাড়িতে। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে লম্পট বাড়িওয়ালা একেখান(৪০) প্রায় তাঁর মেয়েকে কুপ্রস্তাব দিত। এবং বিভিন্ন উছিলায় সে মেয়েকে বিরক্ত করতো। বিষয়টি মেয়ে তাকে জানালেও তিনি ততটা গুরুত্ব দেননি। তিনি আরো বলেন আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেনি তাকে হত্যা করা হয়েছে। তার মুখে ও ঠোঁটে কামড়ের দাগ রয়েছে। আমি এ হত্যার সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে বিচার চাই।
এ দিকে এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে বিচার চেয়ে মানববন্ধন করেছে পলির বিদ্যালয়ের সহপাঠি ও শিক্ষক শিক্ষিকারা। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বন্দর থানার অসি তদন্ত ফয়জুল আজিম বলেন, এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে এবং ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ঐ বাড়ির বাড়িওয়ালা একেখান(৪০)কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, ২অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চট্টগ্রামের বন্দর থানাধীন কুড়ির পুকুরপাড়া এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে ৬ষ্ঠ শ্রণিতে পড়য়া স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে বন্দর থানা পুলিশ। পলির লাশ গুইমারায় দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়।

About admin

Leave a Reply