ব্রেকিং নিউজ
Home » ক্রাইম নিউজ » গুইমারায় দোকানের প্লট নিয়ে মালিক-ভাড়াটিয়ার বিরোধ

গুইমারায় দোকানের প্লট নিয়ে মালিক-ভাড়াটিয়ার বিরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদক:: গুইমারায় দোকানের প্লট নিয়ে মালিক-ভাড়াটিয়ার মধ্যে শুরু হয়েছে তুমুল বিরোধ। বাজারের ৬১ নং বানিজ্য ফ্লট এর মালিক নিরঞ্জন কুমার সিংহ ও হারাধন কুমার সিংহ থেকে রাজন পাল দোকান ক্রয় করে। ভাড়াটিয়া নিজ্জল বণিক দোকান ছেরে না দেয়ায় তার সাথে র্দীঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল।
জানা যায়, দোকান ঘরটির মালিক হারাধন কুমার সিংহ ভাড়া দিয়েছিল দিবাকর বণিকের কাছে, দিবাকর ভাড়া দিয়েছে নিজ্জল বণিকের কাছে। বর্তমানে বিচারে তোয়াক্কা না করে এই দোকান ঘরটিতে জুয়োলার্স এর ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে নিজ্জল বণিক। মালিকদের টাকার প্রয়োজনে তা বিক্রি করে দিয়ে দোকান ঘরটি ক্রেতার নিকট বুঝিয়ে দিতে গেলে ভাড়াটিয়া দোকান ঘর ছাড়তে অস্বিকৃত জানান। এই নিয়ে র্দীঘ দিন ধরে চলছে বিরোধ ও মামলা মোকদ্দমা। গত বুধবার সকাল অনুমানিক ১১ ঘটিকার সময় তালা মারা অবস্থায় ২জন রং মিস্ত্রি রং করতে গেলে রং করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে শুরু হয় তুমুল তর্ক বির্তক।
অপরদিকে, দোকানে রং করার বিষয়ে নিয়ে রাজন পাল সাথে যোগাযোগ করতে গেল তিনি বলেন, এই দোকানটি র্দীঘদিন আগে দোকানের মালিক থেকে ক্রয় করেছি এমনকি দোকানের মালিকের নির্দেশে দোকান রং করা জন্য গিয়েছে। এই বিষয়ে মালিকের সাথে কথা বললে রং করার বিষয় সহ বিস্তারিত জানা যাবে। নিজ্জল বণিক একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে মালিক সহ আমাকে হয়রানি করছে।
এইদিকে, নিজ্জ্বল বণিক জানান, আমি দোকান ভাড়া নিয়েছি দোকানের মালিক দোকান ঘরটি আমার কাছে বিক্রি না করে রাজন পালের নিকট বিক্রি করেছে। দোকান ক্রয়ের প্রার্থি ছিলাম কারন এই দোকানে বর্তমানে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছি, দোকান ক্রয় করার দাবিতে খাগড়াছড়ি আদালতে মামলা করেছি। উল্লেখিত গত বুধবার ৯ অক্টোবর ২০১৯ ঘটনাটি নিয়ে নিজ্জন বণিক আইন জীবির পরামর্শ নিয়ে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।
অপরদিকে, ঘটনার পর বিষয়টি বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড খাগড়াছড়ি জেলা শাখা ও গুইমারা উপজেলা শাখার কাছে নিজ্জল বণিক অভিযোগ করলে তারা ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত করে যৌথ বিবৃতিতে জানান, নিজ্জল বণিক পিতা মৃত গোপাল বণিক, তিনি মোবাইলের মাধ্যমে জেলা সন্তান কমান্ডের সভাপতিকে জানান যে, রাজন পাল পিং ধনজয় পাল আমার অনুপস্থিতিতে আমার দোকানে হামলা, র্স্বন গহনা লুট ও টাকা চুরি করে দোকানে তালা মেরে যায়। উক্ত বিষয়ে খাগড়াছড়ি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সকল নের্তৃবৃন্দ ঘটনা স্থলে আসার পরে বিষয়টি পর্যবেক্ষন ও তদন্ত করে সর্ম্পূণ বিষয়টি নিজ্জল বণিকের মনগড়া মনে হওয়াতে উক্ত বিষয়ে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, খাগড়াছড়ি জেলা শাখা ও গুইমারা উপজেলা শাখা বিষয়টিকে সর্ম্পূণ গুইমারা বাজার ব্যবসায়ীদের একান্ত ব্যক্তিগত বিষয়ে বলিয়া লিখিত একটি প্রতিবেদন দিয়েছেন।
দোকানের মালিক হারাধন কুমার সিংহ সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, নিজ্জল বণিক অবৈধ ভাবে ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে দোকান ঘরটি দখল করে রেখেছে। আমার লোকজনকে দেকানের বাইরে রং করার জন্য নির্দেশ দিয়েছি। সেটা নিয়েও মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে বাজার ব্যবসায়ীদের সভাপতি-সম্পাদক সহ সকলে অবগত আছেন।

About admin

Leave a Reply