ব্রেকিং নিউজ
Home » আলোচিত বাংলাদেশ » গুইমারায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা নিয়ে গুঞ্জন

গুইমারায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা নিয়ে গুঞ্জন

নিজস্ব প্রতিবেদক:: খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়া হাজী ইসমাইলের জলাশয় ভরাটের অপরাধে ৩০ হাজার টাকা ও কালাপানির মুজিবর রহমানকে মক্তব নির্মিত জায়গায় মাটি কেঁটে মক্তব (ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান) নিমার্ণের প্রায় ৬-৭ মাস পর গত সোমবার ৪ নভেম্বর পাহাড় কাঁটার দায়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

তবে বিগত সাবেক ইউএনও থাকা কালীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য মাটি কাঁটা হলেও দীর্ঘ প্রায় ৭ মাস পর এ জরিমানা নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে প্রশ্ন উঠেছে। উঠেছে জরিমানা নিয়ে নানা গুঞ্জনও। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) ১১ ঘটিকায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার তুষার আহমেদ ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে এ অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে গুইমারা থানা অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) বিদ্যুৎ বড়ুয়া,হাফছড়ি পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ আসহাব উদ্দিন ও পুলিশ সদস্যরা অংশ নেয়।

এ বিষয়ে অভিযান পরিচালনাকারী ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তুষার আহমেদ বলেন, অনুমতি ব্যতিত অবৈধ ভাবে পাহাড় কাটার অপরাধে মুজিবর রহমানকে পরিবেশ আইনের ১৯৯৫ সালের ৬(ক) ধারায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে এবং হাজী মোঃ ইসমাইলকে বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইনের ১৯৯৫ সালের ৬ (ঙ) ধারায় ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক বছর কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। তিনি গুইমারায় এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।বলে জানান।

অপরদিকে, গুইমারা মেম্বার পাড়ায় পাশ্ববর্তী বসতি ঝুঁকির্পূন করে পাহাড় কাঁটা হলে সে বিষয়ে নিরব প্রশাসন? কিন্তু হাজী ইসমাইলের পুকুর ১ চতুর্থাংশ ভরাট করায় পরিচালিত হয় ভ্রাম্যমান আদালত। অজ্ঞাত কারনে সংবাদ প্রকাশের পরও গুইমারা মেম্বার পাড়া, সিন্দুকছড়ি, চিংলি পাড়া, বড়পিলাকসহ কিছু পাহাড় খেকোরা সরকারি নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে মাটি কেঁটে তাদের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসলেও তাদের বিরুদ্ধে কোনো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন না করে ব্যক্তি বিশেষের অনুরোধ রক্ষা গুইমারায় পরিচালিত হচ্ছে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান।

About admin

Leave a Reply