পাহাড়ে সম্প্রীতি ও উন্নয়নে কাজ করেছে বিজিবি জওয়ানরা

নিজেস্ব প্রতিবেদক:: দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় বিজিবি জনগনের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে মন্তব্য করে গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শাহরিয়ার জামান বিজিবি পূর্বের যেকোন সময়ের চেয়ে অনেক বেশী শক্তিশালী ও স্বামর্থবান। শুধুমাত্র সীমান্ত সুরক্ষাই নয়, বিজিবি জওয়ানরা পাহাড়ের শান্তি,সম্প্রীতি ও উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

গুইমারা সেক্টরের অধীনস্থ রামগড়ে ১৭৯৫ সালে রামগড় লোকাল ব্যাটালিয়ন নামে বিজিবির গোড়াপত্তন হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিজিবির সাথে খাগড়াছড়ি তথা পাহাড়ের মানুষের আত্মিক সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। এ সম্পর্ককে আরো নিবিড় করারও আহবান জানান তিনি।

শুক্রবার দুপুরের দিকে গুইমারা বিজিবি সেক্টর সদর দপ্তরে বিজিবি দিবস ও বর্ডার গার্ড হাসপাতালের চতুর্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে নিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটেন গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার।

বর্ণিল এ অনুষ্ঠানে বিজিবির গুইমারা সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল মো: আবদুল হাই ও গুইমারা বিজিবি হাসপাতালের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. এমদাদুল হকসহ অন্যান্যরা বত্তৃতা করেন।

এতে গুইমারা বিজিবি সেক্টরের জিটুআই মেজর হামিদ-উর-রহমান,গুইমারা সেনা রিজিয়নের জিটুআই মেজর মইনুল আলম, গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা, গুইমারা থানার ওসি বিদ্যুত কুমার বড়ুয়াসহ সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি,সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দরা অংশ নেয়।

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সেক্টর সদর দপ্তর গুইমারাকে বর্ণিল সাজে রঙের পতাকায় সজ্জিত হয়ে উঠে উৎসবের আমেজে। পরে বিজিবি সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্যদের চিত্তবিনোদনের জন্য মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *