আলোচিত বাংলাদেশ পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্রেকিং নিউজ সাফল্যের বাংলাদেশ

কংজরী চৌধুরীর নেতৃত্বে পাল্টে গেছে খাগড়াছড়ির উন্নয়নের দৃশ্যপট

নুরুল আলম:: কংজরী চৌধুরী খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকে অব্যাহত রয়েছে উন্নয়নের ধারা। খাগড়াছড়িবাসীর দুঃখে-সুখে ছুটছেন তিনি। যেখানে কোন ধরনের সমস্যার সম্মূখীন জনগণ হয়েছে সেখানেই ছুটে গেছে কংজরী চৌধুরী। তার বলিষ্ট নেতৃত্বে খাগড়াছড়িতে সূচিত রয়েছে উন্নয়নের নতুন এক খাগড়াছড়ির।

সকল সম্প্রদায়ের মাঝে অসাম্প্রদায়িক চেতনা নিয়ে কংজরী চৌধুরী উন্নয়নের চিন্তা-চেতনা নিয়ে এগিয়ে নিতে ছুটছেন তিনি। আওয়ামীলীগ সরকারের এ সময়ে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় উন্নয়নের সর্বখাতে তার সুচিন্তিত ভাবনায় প্রত্যান্ত দূর্গম জনপদেও উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে।
এরই পাশপাশি দূর্যোগ মোকাবেলায়া অসহায়দের সহযোগিতার হাত বাড়ানো থেকে শুরু করে প্রত্যান্ত অঞ্চলের পাহাড়ী-বাঙ্গালীর বেকার জনগোষ্ঠির পাশে দাঁড়িয়ে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, আর্থিক অনুদান।

অসুস্থদের চিকিৎসাত্বে সাহার্য্য প্রদান,শিক্ষা বৃত্তি প্রদান,সেলাই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আত্মকর্ম সংস্থান সৃষ্টি থেকে শুরু করে পাহাড়ে জনকল্যাণমূখী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে পার্বত্য এ জেলাকে এগিয়ে নেওয়ার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে মারমা সম্প্রদায়ের শীর্ষ নেতা ও খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী। সাহার্য্য চেয়ে খালি হাতে ফেরেনি কেউ।

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর খাগড়াছড়িকে উন্নত জেলা হিসেবে রুপান্তরিত করার জন্য অক্লান্ত চেষ্টার মধ্যে সোলার, ঘর নির্মানের জন্য নগদ অর্থ প্রদান, বিভিন্ন স্কুল-কলেজ নির্মাণ, খেলা-ধুলা সামগ্রী, ব্রিজ-কালভার্ট নির্মাণসহ যে সকল এলাকায় উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি, সে সব এলাকায় রাস্তাঘাট অন্যান্য সুবিধা দেওয়ার মাধ্যমে উন্নয়নের ছোয়া পৌঁছে দিয়েছেন তিনি। এছাড়াও পার্বত্য এই অঞ্চলের সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মীদের পাশে থেকেও বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করেছেন।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে খাগড়াছড়ির ৯টি উপজেলার অসহায় জনসাধারনের মাঝে পার্বত্য জেলা পরিষদের অধিনস্থ্য সরকারী বিভিন্ন সংস্থার ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন পরিশ্রমী এই চেয়ারম্যান। খাগড়াছড়িজুড়ে একটু চোখ বুলালেই দেখা মিলবে উন্নয়নের এই চিত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *