ক্রাইম নিউজ খাগড়াছড়ি গুইমারা পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্রেকিং নিউজ

গুইমারায় সংগঠনের নামে ভেলকিবাজি

নিজস্ব প্রতিবেদক

খাগড়াছড়ির গুইমারায় এম. সাইফুর রহমান একের পর এক সংগঠনের নামে প্রতারণা ও সাংবাদিকতার নামে তার ক্ষমতার দাপটে অতিষ্ঠ সাধারণ জনগন। ভুয়া নাম ও পরিচয় পত্র ব্যবহার করে একই সাথে বিভিন্ন টেলিভিশনের প্রতিনিধি হয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ চালিয়ে যাচ্ছে বেপরোয়া ক্ষমতার অপব্যবহার। তার জাতীয় পরিচয় পত্র কয়টি তা তদন্ত করলে আসল রহস্য বেড়িয়ে আসবে। তাদের জ্বালায় অতিষ্ঠ এলাকাবাসী জানতে চায় তাদের খুঁটির জোর কোথায়?

এ মহলটি নিজেদের জাহির করার জন্য ৪টি সংগঠনের পরিচয় দিয়ে প্রতারনা করছে। কখনো সাংবাদিক ফোরাম, খাগড়াছড়ি দক্ষিনাঞ্চল প্রেস ক্লাব, উপজেলা প্রেস ক্লাব গুইমারা, বর্তমানে পার্বত্যাঞ্চল প্রেস ক্লাব নামে কমিটি করেছে। যার ফলে কলঙ্কিত হচ্ছে সাংবাদিকতার মত মহান পেশা। সাংবাদিকদের উপর থেকে আস্থা হারাচ্ছে সাধারন মানুষ।

অন্যদিকে তাদের এমন কর্মকাণ্ডে সাধারণ মানুষ এ পেশাকে বৃদ্ধাংগুলি দেখাচ্ছে। এম সাইফুর রহমান ওরফে সজিব গুইমারা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের জায়গা দখল করে অবৈধভাবে অফিস ঘর নির্মাণ করার জন্য দেওয়াল তুলতে গেলে খাগড়াছড়ি জেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর কর্মকর্তারা তাদের বিরুদ্ধে গুইমারা থানায় অভিযোগ দাখিল করে। এক পর্যায়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয় সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। চক্রটি বিভিন্ন সংগঠন করে অফিস খুলে দান-দক্ষিনায় পাওয়া ক্যামেরা, টেলিভিশন ও বিভিন্ন আসবাবপত্রসহ মূল্যবান জিনিসপত্র আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে গুইমারার তাদের সংগঠনের সাথে যুক্ত থাকা সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে।

এসব সংগঠনে চলে তার একক আধিপত্য। তাই সবই তার। অফিস সংস্কার করার কথা বলে বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী দপ্তর থেকে অর্থ বাণিজ্য করে যাচ্ছে তারা। তাদের এসব অপকর্মের বিষয়টি এলাকাবাসীর কাছে ওপেন সিক্রেট হওয়ার পরও যেন দেখার কেউ নেই। বরং বিভিন্ন সংস্থা থেকে পাচ্ছে অপকর্ম যালিয়ে যাওয়ার শক্তি।

এছাড়াও প্রস্তাবিত গুইমারা উপজেলা কার্যালয়ের জায়গাতেও চক্রটি অবৈধ দখলে আছে। জায়গাটি সরকারী খাস জায়গা হওয়া সত্বেও সে সেখানে বাড়ি ঘর নির্মান এবং বাগ বাগিচা সৃজন করে অবৈধ দখলে রেখেছে।

অপর দিকে, দিদারুল আলম গুইমারা সাংবাদিক ইউনিয়নের সংগঠনের সাথে দীর্ঘদিন কাজ করার পর সাইফুলের সাথে মতবিরোধের ফলে গুইমারা রিপোর্টার ইউনিটি নামে একটি সংগঠন তৈরি করে। উক্ত সংগঠনে আব্দুর রহিম সহ-সভাপতি এবং আনন্দ সোম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এম. সাইফুর রহমানের সাথে  সাংবাদিক ফোরামে আব্দুল আলী, এম. দুলাল আহাম্মদ, শাহ আলম, ও আনোয়ার হোসেন ছিলেন। বর্তমানে তারা গুইমারা প্রেস ক্লাবের সাথে সম্পৃক্ত। উক্ত গুইমারা প্রেস ক্লাব কমিটিতে সাবেক আহবায়ক মেমং মারমা বর্তমান কমিটির আজীবন সদস্য।

গুইমারা প্রেস ক্লাব ২০০৩ সালে গঠিত হওয়ার পর থেকে সামাজিক সংগঠন হিসেবে সম্মানের সহিত কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। পরবর্তিতে ২০০৬ সালে আবার কমিটি গঠন করা হয় এরপর থেকে পর্যায়ক্রমে নতুন কমিটি গঠনের মাধ্যমে আজব্দি সংগঠনটি কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। গত ২০১৪ সালের পরে রেজুলেশনের মাধ্যমে গুইমারা প্রেস ক্লাবের নাম পরিবর্তন করে গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব রাখলেও পরবর্তীতে রেজুলেশনের মাধ্যমে পুর্বের নামই বহাল রাখা হয়।

গুইমারা সাংবাদিক ফোরাম, গুইমারা রিপর্টার ইউনিটি ও গুইমারা প্রেস ক্লাব নামে তিনটি সাংবাদিক সংগঠন থাকার কারনে সকলকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য তৎকালীন ২৪ আর্টিলারী ব্রিগেড গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার একেএম সাজেদুল ইসলাম এএফ ডব্লিউসি, পিএসসি,জি ও ১৪ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারী সিন্দুকছড়ি জোন কমান্ডার লে. কর্ণেল রুবায়েত মাহমুদ হাসিব পিএসসি,জির উদ্যোগে ২৭ জুলাই ২০১৯ইং সালে মেমং মারমা কে আহবায়ক, নুরুল আলম কে যুগ্ন-আহবায়ক এবং এম. দুলাল আহাম্মদ কে সদস্য সচিব এবং এম. সাইফুর রহমান ও দিদারুল আলম কে সদস্য করে সকল সংগঠনকে এক করে ৫ সদস্যের গুইমারা প্রেস ক্লাব আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। পরবর্তীতে আহবায়ক কমিটির উপস্থিতিতে ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য ১৭ জন কে সদস্য করা হয়।

১১ ডিসেম্বর ২০২০ইং সালে আহবায়কের নির্দেশক্রমে উক্ত সদস্যদের সম্মতিক্রমে নুরুল আলমকে সভাপতি এবং এম. দুলাল আহাম্মদ কে সাধারণ সম্পাদক করে ১৪ সদস্যের গুইমারা প্রেস ক্লাবের পুর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত কমিটি গঠন কালে এম. সাইফুর রহমান ও দিদারুল আলম কে একাধিক বার চিঠি ও মৌখিক ভাবে জানানো হলেও তারা কমিটি গঠনে অংশগ্রহন করেনি বরং কমিটি গঠনে বিরোধিতা করেছে।

সচেতন মহলের দাবী সাংবাদিকতা একটি মহৎ পেশা তাদের কাজ সত্য প্রকাশ করে জনগনের সেবা ও দুর্নীতি মুক্ত সমাজ গঠনে ভুমিকা পালন করা। কিন্তু কোন সাংবাদিকের কারনে কেউ যাতে প্রতারণা ও অত্যাচারের শিকার না হয় সে দিকে লক্ষ্য রেখে সকল কে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কজ করা প্রয়োজন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *