পরিবর্তন আনতে হবে শিক্ষা ব্যবস্থায় : সন্তু লারমা

11.03.17-p.....1-300x157নিজেস্ব প্রতিবেদক,রাঙামাটি : পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধি প্রিয় লারমা (সন্তু লারমা) বলেছেন, বাংলাদেশের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আনতে হবে।

শনিবার ১১মার্চ সকাল সাড়ে ১০টায় অনুষ্ঠিত রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা জানান। সন্তু লারমা বলেন, আমরা বিজ্ঞানের দিক দিয়ে এগিয়ে গেলেও আমাদের দেশের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যবস্থায় পরিবর্তন না হওয়ায় আমাদের সমাজে বৈষম্য, জাতিগত দ্বন্ধ, শ্রেণীভেদ লেগে থাকে। এ শিক্ষার ব্যবস্থার পরিবর্তন না করা পর্যন্ত আমাদের সমাজে হানাহানি লেগে থাকবে। সন্তু জানান, যে শিক্ষা আমাদের সমাজে হানাহানি, বৈষম্য দ্বন্ধ সংঘাত দূর করতে পারে না সে শিক্ষাকে আমি শিক্ষা বলি না । আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা গণমূখি হলে সমাজ থেকে দ্বন্ধ, সংঘাত দূর করা যাবে বলে সন্তু জানান।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক ও সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবের আহবায়ক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. গোলাম ফারুক, জোন কমান্ডার লে. কর্ণেল রিদওয়ানুল ইসলাম. রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা শিক্ষক মো. মুজিবুর রহমানের কন্যা শিক্ষাবিদ কাওসার জাহান ফরিদা, ওই বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষীকা অঞ্জুলিকা খীসা ও নীরুপা দেওয়ান।  সন্তু লারমা জানান, এ পার্বত্যঞ্চলের শিক্ষা ব্যবস্থার কোন লিখিত দলিল নেই। এজন্য এ অঞ্চলের শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য দলিল তৈরি করা উচিত। কারা এ পার্বত্যঞ্চলের শিক্ষার উন্নয়নে অবদান রেখেছেন তাদের সম্পর্কে জানতে হবে।

11.03.17-p......2-660x330সন্তু লারমা বলেন, এ বিদ্যালয়ের ৫০বছর সুবর্ণ জয়ন্তি পালিত হচ্ছে। এ বিদ্যালয় থেকে অনেক কৃতি ছাত্রী বের হয়েছেন। তারা কি কোনদিন এ বিদ্যালয়ের শিক্ষাসহ সামগ্রিক উন্নয়নের কথা ভেবেছেন। ভেবে দেখার জন্য এসময় তিনি বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রীদের দৃষ্টি কামনা করেন।

বক্তব্য পরবর্তী বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং সাবেক ছাত্রী যারা দেশ-বিদেশে সুনাম ছড়াচ্ছেন এরকম ৪৫জনকে সম্মাননা প্রদান করা হয় সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব কমিটির পক্ষ থেকে। রাঙামাটির ঐতিহ্যবাহী এ বিদ্যালয়ে চলতি বছরের ১০ মার্চ থেকে দু’দিন ব্যাপী শুরু হওয়া সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব বিকেলে শেষ হবে সাবেক ছাত্রীদের স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *