বেপরোয়া গতির মোটর সাইকেলে দুই মৃত্যু

18221737_898427053630950_2831549106911580740_n-275x500নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মানিকছড়ির তুলাবিল গ্রামের যুবক মো. শাহাজালাল (৩২)  একজন অদক্ষ মোটর সাইকেল চালক। তারপরও প্রতিনিয়ত শত কিলোমিটার গতিতে সে মোটর সাইকেল চালাতে প্রছন্দ করে। গত ৫ বছরে কয়েক ডজন যাত্রী পঙ্গুসহ অর্ধশত দূর্ঘটনা সে ঘটিয়েছে। তারপরও বেপরোয়া গতি ছাড়া মোটর সাইকেল যেন চলেই না!

সর্বশেষ ১ মে সকালে জেঠা মো. মোক্তার হোসেন(৭০) ও পিতা মো. মীর হোসেন(৬৫)কে নিয়ে ব্যক্তিগত কাজে ফেনীর ছাগলনাইয়া যায়। বিকাল সোয়া ৪টায় ফেরার পথে হেয়াঁকো বাজারের অদূরে(কড়ই বাগান) মোটরসাইকেল-মাইক্রেবাসের মূখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে চালকের জেঠা এবং চমেক হাসপাতালে চালকের পিতার মৃত্যু ঘটে! গুরুত্বর আহত চালক মো. শাহাজালাল চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় গ্রামের শোকের মাতম।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার তুলাবিল গ্রামের মৃত্যু আম্বর আলীর ছেলে মো. মোক্তার হোসেন(৭০) ও মো. মীর হোসেন (৬৫)। মো. মোক্তার হোসেন এর সংসারে ৫ ছেলে, ২ মেয়ে এবং  পিতা মো. মীর হোসেন এর একমাত্র ছেলে মো. শাহাজালাল (বিবাহিত)।

১ মে সোমবার সকালে পিতা মো. মীর হোসেন এবং জেঠা মো. মোক্তার হোসেনকে সাথে নিয়ে তারা ব্যক্তিগত কাজে ফেনীর ছাগলনাইয়া যায়। সেখানে কাজ-কর্ম শেষে বিকালে বাড়ী ফেরার পথে হেঁয়াকো বাজারের অদূরে(পশ্চিমে) রামগড়-ফেনী সড়কে মাইক্রোবাস ও মোটরসাইকেলের মূখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে মোটরসাইকেলটি দুমড়ে-মুচরে যায় এবং ঘটনাস্থলে মো. মোক্তার হোসেন এর মৃত্যু ঘটে। মূমুর্ষ অবস্থায় চালক মো. শাহাজালাল ও পিতা মীর হোসেনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পুলিশের সহযোগিতায় চমেক হামপাতালে প্রেরণ করলে সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মীর হোসেন এর মৃত্যু ঘটে। অপর দিকে চালক মো. শাহাজালাল এখনো মৃত্যুশয্যায়।

এ ঘটনায় নিহতদের গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *