পাহাড়ে সাংবাদিক নির্যাতনে উদ্বেগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলাসহ পাহাড়ে একের পর এক সাংবাদিক নির্যাতন ও বিভিন্ন ইস্যুতে সাংবাদিকদের হামলা,মামলা ও হয়রানীর ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে খাগড়াছড়ির সাংবাদিক নেতারা। সম্প্রতি মাটিরাঙা উপজেলার দৈনিক ভোরের কাগজ সাংবাদিক অন্তর মাহমুদের উপর স্থানীয় উপজেলা যুবলীগ সহ-সভাপতি শওকত আকবর কর্তৃক হামলায় আহত হওয়ার ঘটনায় এই উদ্বেগ প্রকাশ করে তারা।

খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাব সভাপতি জীতেন বড়–য়া,খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি নুরুল আজম,গুইমারা উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি ও নিউজ অব খাগড়াছড়ির সম্পাদক নুরুল আলমসহ  খাগড়াছড়ি জেলার সিনিয়র সাংবাদিকরা এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে দোষিদের শাস্তি দাবী করেন।

গত রোববার বেলা সাড়ে ১২টায় মাটিরাঙা উপজেলা বাজারে অন্তর মাহমুদের ওপর হামলা করা হয়। তবে হামলা মুল কারণ এখনো অজানায় রয়েগেছে। আহত অন্তর মাহমুদকে প্রথমে মাটিরাঙা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার পর বর্তমানে জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মাটিরাঙা উপজেলা প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান ভূইঁয়া অন্তর মাহমুদের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, হামলার পর অন্তর মাহমুদ মাটিরাঙা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন পর জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মাটিরাঙা থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো: সাহাদাত হোসেন টিটু সাংবাদিক অন্তর মাহমুদের ওপর হামলার ঘটনা স্বীকার করে জানান, অভিযোগকৃত অনুযায়ী পুলিশ দ্রুত তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

আহত অন্তর মাহমুদ বলেন ,একেবারে অন্যায় ভাবে আমার উপর হামলা করা হয়েছে। আমি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানাই। তিনি আরো বলেন, এটা শুধু আমার উপর হামলা নয়-পুরো সাংবাদিক সমাজের উপর হামলা করেছে । এবিষয়ে কথা বলতে মাটিরাঙা উপজেলা যুবলীগ সহ-সভাপতি শওকত আকবরের মুঠোফোনে কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় উপজেলা যুবলীগ থেকে শওকত আকবরকে বহিস্কার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন খাগড়াছড়ি জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কেএম ইসমাইল হোসেন। জেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক কেএম ইসমাইল হোসেন আরো জানান, সাংবাদিদের ওপর হামলা অত্যন্ত নিন্দাজনক। যুবলীগে কেউ সংগঠনের গণতন্ত্র পরিপন্থী কাজ করলে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই শাস্তির ব্যবস্থা রয়েছে। অভিযোগ পেলে শওকত আকবরের বিরুদ্ধেও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং এই ধরনের ঘটনায় যে কেউ নেতা হোক কোন ছাড় দেয়া হবে না।

সাংবাদিক অন্তর মাহমুদের ওপর হামলার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে দ্রুত দোষিদের ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান, খাগড়াছড়ি প্রেস ক্লাব সভাপতি জীতেন বড়ুয়া, সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের মুহাম্মদ, খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়ন(কেইউজে) এর সভাপতি নুরুল আজম, সাধারণ সম্পাদক কানন আচার্য, খাগড়াছড়ি প্রতিদিন ডটকম’র সম্পাদক এডভোকেট জসিম উদ্দিন মজুমদার,সহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

জেলার মাটিরাঙ্গায় উপজেলায় সাংবাদিকের উপর চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জানিয়ে বিচার দাবী করেন কর্মরত সংবাদকর্মীরা। প্রকাশ্যে সাংবাদিককে মরাধর সন্ত্রাসী কর্মকান্ড অভিহিত করে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দরা বলেন, সন্ত্রাসীরা কোন দলের হতে পারে না। তাই সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হওয়া প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন তারা।

উল্লেখ্য, সাংবাদিকদের নিয়ে অশ্রাব্য ভাষায় গালাগাল করার প্রতিবাদের জেরে রোববার দুপুরে মাটিরাঙার হলুদ বাজার এলাকায় দৈনিক ভোরের কাগজ’র মাটিরাঙা প্রতিনিধি অন্তর মাহমুদকে কাঠের টুকরো দিয়ে আঘাত করে আহত করে শওকত আকবর। হামলার পর প্রথমে মাটিরাঙা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরবর্তীতে খাগড়াছড়ি হাসপাতালে প্রেরণ করা হয় অন্তর মাহমুদকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *