পানছড়িতে গুচ্ছগ্রামের কার্ড নিয়ে অনিয়ম

আল-মামুন,স্টাফ রিপোর্টার :: পার্বত্য খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলাধীন ২৪৬নং ছোট পানছড়ি মৌজার মোল্লাপাড়া গুচ্ছগ্রামে এক ব্যাক্তির ওয়ারিশ সূত্রে পাপ্য রেশন কার্ড প্রভাব খাটিয়ে নিজ স্ত্রীর নামে নাম পরিবর্তনের অভিযোগ উঠেছে নজরুল ইসলাম নামের এক কৃষকলীগ নেতার বিরুদ্ধে। ৩৬০৩ রেশন কার্ডটি পিতা-মাতার মৃত্যুর পর দাবীদার ওয়ারিশদের নামে পরিবর্তনের স্থলে অনৈতিক ভাবে অর্থ লেনদেন ও দলীয় প্রভাব বিস্তার করে তার স্ত্রীর নামে করে নেওয়ার অভিযোগ করেন একই এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে তসলিম আহমেদ জয়।

অভিযোগকারী তসলিম আহমেদ জয় জানান, বিগত ২০০৩ সালে গুচ্ছগ্রামের কার্ডটির মালিক তার পিতার মৃত্যুর পর তার মার নামে হয় কার্ডটি। কিন্তুু বিগত ১৫ জুলাই ২০০৭ সালে তিনিও মারা যান। এর পর থেকে তার ছেলে-সন্তানরা ভোগ করে আসলেও ২০০৯ সালে স্থানীয় তৎকালীন যুবলীগ,বর্তমান কৃষকলীগ নেতা নজরুল ইসলামের স্ত্রী ছেনোয়ারা বেগম নামে পরিবর্তন করে নেওয়া হয়। এরপর সে তাকে হত্যার হুমকিসহ ভয়-ভীতি প্রর্দশন করে জায়গা দখল করে এলাকা ছাড়া করে বলে অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত নজরুল ইসলাম বলেন, কোন দলীয় প্রভাব নয়, অভিযোগকারীর পরিবারে তিনটি কার্ড ভোগ করে আসছে। যার নিয়ম অনুযায়ী অবৈধ। এ সময় তিনি তসলিম আহমেদ এর বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ এনে বলেন, সে সময়ে আমার আবেদনের প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনে তদন্ত সাপেক্ষে কার্ডটি নাম পরিবর্তন হয়। এ বিষয়ে কোন ধরনের হুমকি,মারধর ও জায়গা দখলের বিষয়টিও তিনি অস্বীকার করেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এ রেশন কার্ডের দাবীদার তসলিম আহমেদ এর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে পানছড়ি ইউএনও কার্যালয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হয় সোমবার। পরে বিষয়টি পানছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আবুল হাশেম তদন্তের নির্দেশ দেন। তদন্ত শেষে কার্ডটির বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি নিশ্চিত করেন। উল্লেখ যে, পানছড়ি উপজেলায় সম্প্রতি গুচ্ছগ্রামের রেশন কার্ড নিয়ে জটিলতা ও বিরোধ বৃদ্ধি পেয়েছে জানান স্থানীয় বাসিন্দারা।     

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *