আন্তর্জাতিক আলোচিত বাংলাদেশ জাতীয় দেশের খবর পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্রেকিং নিউজ রাজনীতি

১৬ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজে বিলম্ব বেহাল সড়কে ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

 

সিন্দুকছড়ি রাস্তার বেহাল অবস্থায় ধারণকৃত ছবি

আল-মামুন/আশরাফুল ইসলাম বেলাল, নিজস্ব প্রতিবেদক:: খাগড়াছড়ির রামগড়-জালিয়াপাড়া-সিন্দুকছড়ি ও মহালছড়ি সড়কের বেহাল অবস্থায় ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে এলাকার জনসাধারনের। দেশের অন্যান্ন দুর্গম সড়ক দ্রুত উন্নয়ন হলেও বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে জালিয়াপাড়া-সিন্দুকছড়ি-মহালছড়ি সড়ক। এবং রামগড়-জালিয়াপাড়া সড়কের ১৬ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ বিলম্বিত হচ্ছে ঠিকাদারের গাফিলতির কারনে।

দীর্ঘ ১০/১২ বছর ধরে জালিয়াপাড়া-মহালছড়ি রাস্তাটি ভাঙ্গা অবস্থায় থাকলেও ইতিপূর্বে সড়কের কাজ শুরু হয়ে ৭ কিলোমিটার পর্যন্ত কাজ সম্পন্ন হয়। জালিয়াপাড়া থেকে সিন্দুকছড়ি হয়ে মহালছড়ি পর্যন্ত প্রায় ১৮ কিলোমিটার। বর্তমানে যানবাহন চলাচলের ৭ কিলোমিটার সড়কের কাজ সম্পন্ন হওয়া সত্তেও বাকী কাজ রয়েছে অসম্পন্ন। সংস্কার অসম্পন্ন এই পাহাড়ী দুর্গম রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন পায়ে হেটে যাতায়াত করতে হয় শত-সহশ্র মানুষের। জালিয়াপাড়া প্রধান সড়ক থেকে মহালছড়ি যেতে রাস্তা অতিক্রম করতে হয় ১৮ কিলোমিটার। রাস্তাটি ভাঙ্গা ও যান চলাচল সম্পূর্ণ অনুপযোগি হওয়া বর্তমানে মহালছড়ি যেতে রাস্তা অতিক্রম করতে হচ্ছে প্রায় ৫০ কিলোমিটার।
রামগড়ে রাস্তার বেহাল অবস্থায় ধারণকৃত ছবি

অন্যদিকে, রাজধানী থেকে ছেড়ে আসা পরিবহন গুলীর ভোগান্তি শুরু হয় রামগড় সোনাইপুল এলাকা থেকে। সোইপুল থেকে জালিয়াপাড়া পর্যন্ত প্রায় ২১ কিলোমিটার রাস্তা। রাস্তার উন্নয়ন প্রকল্প বাজেট হলেও সড়কের উন্নয়ন প্রকল্প প্রাপ্ত ঠিকাদারের অনিয়ম ও গাফিলতির কারণে উন্নয়নের পরশ পায়নি উক্ত ২১ কিলোমিটার রাস্তায়। রাস্তার বেহাল দশায় যানবাহন দুর্ঘটার সম্মূক্ষিন হচ্ছে।

সড়কের উন্নয়ন প্রকল্প প্রাপ্ত ঠিকাদার অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা জানায়, সোনাইপুল-জালিয়াপাড়া মহাসড়কের কার্পেটিং ও ড্রেনের কাজের জন্য প্রায় ১৬ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়। কিছু কাজ করার পর বর্ষার মৌসুম আসায় সওজ মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে কাজটি স্থগিত করা হয়। বর্তমান বর্ষা মৌসুম শেষ, তাই দ্রুত গতিতে সড়কের কাজটি শেষ করবেন বলে জানান।

সওজ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী, সবুজ চাকমা বলেন, সোনাইপুল থেকে জালিয়াপাড়া পর্যন্ত ঠিকাদারী পেয়েছে অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা। বর্ষার মৌসুম আসায় সওজ মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে কাজটি স্থগিত ছিল এবং মন্ত্রনালয় থেকে সময় বৃদ্ধির অনুমতি নিয়েছে। বর্তমানে কাজটি দ্রুত গতিতে শেষ করবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

রাস্তা গুলীর কাজ দ্রুত সম্পুন্ন শেষ না হওয়া পর্যন্ত ভোগান্তি থাকবেই জনসাধারনের। তাই রাস্তাগুলী দ্রুত সুংস্কার করার দাবী জানিয়েছেন যাত্রীগণ ও এলাকাবাসীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *